শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রচ্ছদ সানির সাথে কি করতে চান ‘হিরো আলম’?

সানির সাথে কি করতে চান ‘হিরো আলম’?


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮ , ৯:০৪ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: প্রচ্ছদ


কুচকুচে কালো আর দেখতে বড় সাদামাটা বললেও যেন কম বলা হয়। সেই হিরো আলম যখন দুর্দান্তভাবে সাড়া ফেল দেন ইউটিউবে, তখন রাতারাতি সুপারস্টার বনে যান বাংলাদেশের এক অনামি ছেলে। মেয়েদের ক্রেজের চোটে মিউজিক ভিডিও থেকে সিনেমাতেও নেমে পড়েন। হিরো আলম, নামটা এখন আর চিনিয়ে দিতে লাগে না।

গত আড়াই বছরে নানান মিউজিক ভিডিও, শর্টফিল্মে তাঁকে হামেশাই চোখে পড়ে। সেল্ফমেড স্টার বলতে হবে পাঁচ ফুট একইঞ্চির ওই লোকাটাকে। সম্প্রতি ওপার বাংলা থেকে এপার বাংলাতে এসেছিলেন আশরাফুল হোসেন আলম। বর্ধমানে একটা একটা ইভেন্টের প্রোগামে যোগ দিতে আসা আর কি। কলকাতা বিমানবন্দরে নামার পরই তাঁকে নিয়ে মেয়েদের ক্রেজ দেখে রীতিমতো উচ্ছ্বসিত হয়ে পড়েন তিনি।

আঙুল দেখিয়েই বলতে শুরু করে দেন, ‘দেখছেন মেয়েরা আমাকে কেমন করে দেখছে।’ বহুল প্রচারিত বাংলা দৈনিক ‘সংবাদ প্রতিদিন’কে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে নানান কথা জানিয়েছেন ওপার বাংলার সেল্ফ মেড স্টার। লোকে তাঁকে হিরো বানায়নি, বরং নিজেই নিজেকে হিরো বানিয়েছেন তিনি। আর এই কারণেই পুরো নাম ছেড়ে, নিজের নামের আগে হিরো শব্দটি জুড়েছেন আলম। এখন ইচ্ছে সানি লিওনির বলিউডে ছবি করার। আর তার কারণও আছে। ‘দেখুন আমি কিন্তু ইউটিউবে ভাইরাল। ফলে, এমন একজনের সঙ্গে অভিনয় করব, যে নিজেও খুব তাড়াতাড়ি ভাইরাল হয়। তাই সানি লিওনির সঙ্গে অভিনয় করতে চাই সুযোগ এলে।’ টলিউডের দুই নায়িকাকে খুব পছন্দ হিরো আলমের। বললেন, ‘টলিউডে দু’জনের সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছে আছে। একজন কোয়েল মল্লিক আর দ্বিতীয় জন শ্রাবন্তী।’

নিজের দেশের সলমন শাহ আর ভারতের বলিউড তারকা সলমন খানের অভিনয় ও নাচ দেখে অনুপ্রাণিত হিরো আলম বলছেন, তাঁর কম্পিটিশিন তিনি নিজেই, কলকাতার কেনো, গোটা ইউটিউবে খুঁজে বেড়ালেও, তাঁকে হারানোর মতো কোনও স্টার পাওয়া যাবে না। হামেশাই ফেসবুকে তাঁকে নিয়ে নানান ‘মেমে’ ভাইরাল হয়। আর তার তলায় নানান কটু কথাও বলেন অনেকে। সেসবকে মোটেই পাত্তা দেতে রাজি নন বছর তিরিশের সেল্ফমেড স্টার। বরং বলছেন, ‘যাঁরা বাজে কথা বলেন, তাঁরাও তো আমার ভিডিও দেখেছেন, না হলে বলছেন কি করে! তাই সকলকেই আদাব জানতে চাই।’

আরও বললেন, ‘আমাকে সকলেই ভালোবাসে। কারা হিংসে করে জানেন? যাঁরা দেখতে ভালো, তারাই আমায় হিংসে করে। সুন্দর দেখতে যারা, তারাই আমাকে নিয়ে বাজে কথা বলে। কারণ, আমি খারাপ দেখতে। তাও এতো অল্প সময়ে আমি হিট। কেন এমন, এটা ওরা বুঝতে পারে না।’ মিউজিক ভিডিওতে পপুলার হয়ে ওঠার পর প্রতি সপ্তাহে নাকি একটা করে মিউজিক ভিডিও লঞ্চ করেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। প্রথম পেশা কেবলের ব্যবসা এখনও চালিয়ে যাচ্ছেন। সঙ্গে বিভিন্ন নাচ-গান-নাটকের ভিডিও প্রোডিউসও করছেন। সুদর্শন না হয়েও তাঁর প্রথম মিউজিক ভিডিও বের করার গল্পটিও বেশ বেদনাদায়ক, আবার খোশমেজাজিও।

‘ছোটো থেকেই একটা কথাকে সবসময় মাথায় রাখতাম, ইচ্ছাশক্তি থাকলে সব হয়। লোকে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার হতে চায়, আমি চেয়েছিলাম, হিরো হব। আর হয়েওছি। হিরো হতে গেলে দেখতে ভালো হতে হয়, চেহারা বানাতে হয়। আমার কোনওটাই নেই। আমার গায়ের রং কালো, রোগা, একবার দেখলে কেউ ঘুরে তাকাতেও চাইবে না। তাও আমি হিরো হয়েছি। আর এই হিরো নামটা আমি নিজেই নিজেকে দিয়েছি। উপরওয়ালা সঙ্গে ছিল বলে সব হয়েছে।’ ‘প্রথমবার মিউজিক ভিডিও বানানোর কথা। যে নায়িকাকে রাখা হয়েছিল, সে সেটে জিজ্ঞাসা করেছিল, হিরো কে? নায়িকাকে আমি আগে থেকে চিন্তাম না। সেদিন শুটিংয়ের আগে নায়িকা জিজ্ঞাসা করার পর একজন দেখিয়ে দেয় যে আমিই হিরো। সে তখন বলেছিল, এ আবার কোনও স্টার নাকি। আমি এর সঙ্গে অভিনয় করব না। সেট ছেড়ে চলেও যায়, আমার চেহারা দেখে। কিন্তু, আমার মাথায় জেদ চেপে গিয়েছিল, ওকে নিয়েই মিউজিক ভিডিও করব। লোক পাঠাই। ওর পারিশ্রমিক কত খবর নিই। পাঁচ হাজারের ডাবল পারিশ্রমিক দিয়ে ওকে কাজ করিয়েছি।’

হিরো আলম অভিনীত প্রথম ছবির নাম ‘মার ছক্কা’। ‘দিয়াশলাই’ নামে দ্বিতীয় ছবি খুব তাড়াতাড়িই মুক্তি পাবে। সকলের প্রিয় হিরো আলম বলছেন, ‘বাচ্চারা কার্টুন দেখতে ভালোলাগে। কিন্তু, জানেন, আমি যখন বাজারে যাই, ওরা আমায় দেখে আমার সিনেমার ডায়লগ বলে ওঠে, ‘নাম আমার হিরো আলম, জালিমদের লাগাই মলম। মারব বগুড়ায়, লাশ পড়বে মাগুড়ায়।’ (কথা শেষ না হতে হতেই প্রাণখোলা হাসি)। এখানে এসে খুব ভালোলাগছে (কলকাতায়)। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার এলাম। একটা সিনেমা করারও কথা চলছে।’

Comments

comments

Close