শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেট বিভাগ মাধবপুরে দেড় বছরেও ১০মিটার দীর্ঘ সেতু নির্মিত না হওয়া জন দূর্ভোগ

মাধবপুরে দেড় বছরেও ১০মিটার দীর্ঘ সেতু নির্মিত না হওয়া জন দূর্ভোগ


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ১২, ২০১৮ , ৪:৩৭ অপরাহ্ণ | বিভাগ: সিলেট বিভাগ


মাধবপুর প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার জগদীশপুর তেমুনিয়া -শাহজিবাজার আভ্যন্তরিন সড়কের নোয়াপাড়া সায়হাম নীট কম্পজীট মিলস্ সংগ্লন ছড়ার উপর প্রায় ১০ মিটার দীর্ঘ একটি সেতু নিমির্ত না হওয়ায় সরাসরি যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে । ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে ওই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী শত শত যানবাহন ও যাত্রীরা। দেড় বছরেও সেতুটি নির্মানের কোন উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

জানা যায় ২০১৬ সালে আরটিআইপি প্রকল্পের অধিনে হবি/আরপিএম-২০৮ প্যাকেজের মাধ্যমে ৬ কোটি ৪১ লাখ ৯৩ হাজার টাকায় জগদীশপুর তেমুনিয়া – শাহজিবাজার এলজিইডি সড়কের মেরামতের কাজ শুরু করে মের্সাস নিলু এন্টারপ্রাইজ নামক একটি ঠিকাধারী প্রতিষ্টান । এ প্রকল্পের মধ্যে ছিল বেঙ্গাডুবা ছড়ার উপর ১০ মিটার দীর্ঘ সেতুটি পুন নির্মান । প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল। দেড় বছর ধরে সেতুটি ভেঙ্গে রাখা হয়েছে। নির্মানের কোন উদ্যোগ নেই ।

নোয়াপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জিতু মিয়া জানান, প্রতিদিন এ সড়কে যাতায়াত করে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী , নোয়াপাড়া এলাকার একাধিক শিল্প প্রতিষ্টানের লোকজন, গার্মেন্টস শ্রমিকসহ প্রায় ১০ হাজার লোক । অনেকেই নিচ দিয়ে বিকল্প সেতু থেকে পড়ে হাত পা ভেঙ্গেছে , ঝুকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে । ঠিকাদার ও কর্তৃপক্ষের উদাসিনতার কারণে তাদের ভোগান্তির অন্ত নেই । অতি দ্রুত এ সেতুটি নির্মানের দাবী জানান তিনি ।

কড়রা গ্রামের খসরু মিয়া চৌধুরী জানান, বৃষ্টি হলে পাহাড়ি এ ছড়ায় প্রবল স্রোত হয় , ছোট সেতু দিয়ে পানি যেতে পারে না । সেতুটি আরো প্রসস্ত করে নির্মান করা প্রয়োজন ।

সিএনজি অটোরিকশা চালক এনু ,আজিজ ও সুজন মিয়া জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে এখন সিএনজি চলতে দেয়া হয় না । আভ্যন্তরিন এ সড়কটি মাধবপুর উপজেলাবাসীর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ । দীর্ঘদিন ধরে এ সেতুটি ভেঙ্গে রাখার কারনে সিএনজি ,টমটম সহ লোকজন চলাচল করতে পারছে না । সম্প্রতি সিএনজি চালকরা মিলে কাঠ দিয়ে কোন রকম একটি বিকল্প সেতু তৈরী করেছে । সিএনজি ,টমটম পারাপারের জন্য ১০ টাকা করে দিতে হয়।

নোয়াপাড়া খাদ্য গোদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফয়জুল হক জানান, খাদ্য গোদামের সামনের এ সেতুটি ভাঙ্গা থাকায় ৩-৪ কিলোমিটার ঘুরে গোদামে মালামাল পরিবহনে সময় ও সরকারী অর্থ আপচয় হচ্ছে ।

এ বিষয়ে নিলু এন্টার প্রাইজের ম্যনেজার জন্টু জানান, আগে এ সেতুটি ৩ ব্যান্ডের ছিল । উভয় পাশে খাল দখল হওয়ায় বর্তমানে ২ ব্যান্ডের করা হয়েছে । একাধিক বার সেতুটি নির্মানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে । বৃষ্টি হলেই সব ভাসিয়ে নিয়ে যায় । তাই সেতু নির্মানে বিলম্ব হচ্ছে । এখন বৃষ্টি কমেছে । কিছু দিনের মধ্যেই কাজ শুরু হবে ।

মাধবপুরে সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা প্রকৌশলী জুলফিকার হক চৌধুরী বলেন, ঠিকাদারের সাথে কথা হয়েছে কিছু দিনের মধ্যে সেতুর নির্মান কাজ শুরু করবে।

Comments

comments

Close