শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয়, প্রচ্ছদ, বিভাগীয় সংবাদ, রাজনীতি, শোক কুমিল্লায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ন্যাপ সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের দাফন সম্পন্ন

কুমিল্লায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ন্যাপ সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের দাফন সম্পন্ন


পোস্ট করেছেন: বার্তা বিভাগ ৪ | প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৭, ২০১৯ , ২:১৩ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জাতীয়,প্রচ্ছদ,বিভাগীয় সংবাদ,রাজনীতি,শোক


এম.জে.এ মামুন, দেবিদ্বার :

বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য অধ্যাপক মোজাফফর আহমদকে দাফন করা হয়েছে।২৫/০৮/২০১৯ রোববার দুপুরে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার এলাহাবাদে চেতনায় মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশের কার্যালয়ের মাঠে চতুর্থ জানাজা শেষে তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়।

গত ২৩/০৮/২০১৯ শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর এ্যাপোলো হাসপাতালে মারা যান তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর।রোববার সকাল ১০টায় কুমিল্লা টাউন হল মাঠে মোজাফফর আহমদের তৃতীয় জানাজা এবং তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে কুমিল্লাবাসী।

এর আগে ২৪/০৮/২০১৯ শনিবার সকাল ১০টায় ঢাকা জাতীয় সংসদ এর দক্ষিণ প্লাজায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সালাম ও শ্রদ্ধা নিবেদনের পর জানাযা শেষে ঢাকা ধানমন্ডি হকার্স মার্কেটে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কিছুক্ষণ রাখার পর দুপুর সাড়ে ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে রাখা হয়। সেখানে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংগঠন, সুশীল সমাজ সহ সর্বসাধারন কর্তৃক প্রয়াত নেতাকে শেষবারের মতো দর্শন ও নেতার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর বাদ আসর জাতীয় বায়তুল মোকাররম মসজিদ প্রাঙ্গনে দ্বিতীয় জানাযা সম্পন্ন করা হয়েছে। রাত পৌনে ৮টায় প্রয়াত নেতার মরদেহ নিজ গ্রামের বাড়ি এলাহাবাদ নিয়ে আসা হয়।

তিনি দীর্ঘদিন রোগ ভোগের পর শুক্রবার রাত ৭টা ৪৯মিনিটে ঢাকা এ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ‘ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন’। বার্ধক্যজনিত কারনে নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি ঢাকা এ্যাপোলো হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষনে ছিলেন।

এই ত্যাগী রাজনীতিকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংগঠন, সুশীল সমাজ শোক প্রকাশ ও তার শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

প্রয়াত নেতার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ও এমপি এ,এফ,এম ফখরুল ইসলাম মূন্সী, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ), বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ন্যাপ, কমিউনিস্ট পার্টি ও ছাত্র ইউনিয়ন এর যৌথ উদ্যোগে গঠিত বিশেষ গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা বাহিনী, ‘চেতনায় মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশ’ দেবীদ্বার উপজেলা প্রেসক্লাব সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, গনসংগঠন, বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী সংস্থা, ব্যক্তি উদ্যোক্তা সহ সর্বস্তরের মানুষ।

সর্বশেষ মরহুমের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার এলাহাবাদ গ্রামে চেতনায় মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশের কার্যালয়ের মাঠে তার চতুর্থ জানাজা হয়। জানাযার নামাজ পড়ান অধ্যক্ষ মাওলানা অলিউর রহমান। জানাজা শেষে মোজাফফর আহমদকে গার্ড অব অনার ও রাষ্ট্রীয় সালাম প্রদান করেন কুমিল্লার ডিসি মো. আবুল ফজল মীর, এসপি সৈয়দ নুরুল ইসলাম ও দেবিদ্বারের ইউএনও রবীন্দ্র চাকমা।

জানাজার পূর্বে স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, কুমিল্লা-৪ দেবিদ্বার আসনের এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, সাবেক রাষ্ট্রদূত মো. আবদুল হান্নান, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ আল কাফি রতন, ন্যাপের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ আলী ফারুক, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অধ্যক্ষ এম হুমায়ুন মাহমুদ, অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের ছোট ভাই খোরশেদ আহমদ প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য এএফএম ফখরুল ইসলাম মুন্সী, কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মুন্সী, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কুমিল্লা জেলা সভাপতি এবিএম আতিকুর রহমান বাশার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী জয়নুল আবেদীন, ভাইস চেয়ারম্যান হাজী আবুল কাশেম ওমানী, উপজেলা ন্যাপের সভাপতি বাবু অনিল চক্রবর্তী, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক মমিনুর রহমান বুলবুল, উপজেলা যুবলীগ নেতা প্রভাষক সাইফুল ইসলাম শামিম প্রমুখ।

মোজাফফর আহমদ ১৯২২ সালের ১৪ এপ্রিল কুমিল্লার দেবিদ্বারের এলাহাবাদ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৫২ সালের মহান ভাষা আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন এবং ৭১এ মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী মুজিব নগর সরকারের উপদেষ্টা ছিলেন। রাজনীতির পাশাপাশি তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা কলেজসহ বিভিন্ন কলেজে শিক্ষকতা করেছেন।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি এক কন্যা সন্তানের জনক। তার স্ত্রী কুৃিমল্লা-৪(দেবিদ্বার) সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আমিনা আহমদ বর্তমানে ন্যাপের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য এবং বাংলাদেশ নারী সমিতিতে সভানেত্রী হিসেবে আছেন।

Comments

comments

Close