মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রংপুর বিভাগ পলাশবাড়িতে আড়াই লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট !

পলাশবাড়িতে আড়াই লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট !


পোস্ট করেছেন: রংপুর বিভাগীয় ব্যুরো চিফ , | প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৭, ২০১৯ , ৪:৫৭ অপরাহ্ণ | বিভাগ: রংপুর বিভাগ


গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ি উপজেলার মরাদাতেয়া গ্রামে হরিনাবাড়িতে নগদ ১ লক্ষাধিক টাকা সহ আড়াই লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটপাটের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গত ২৫ আগষ্ট রোববার দিবাগত রাতে এই ঘটনাটি ঘটে।
উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের মরাদাতেয়া গ্রামের আনিছুর রহমানের পুত্র আপেল মিয়ার সাথে। গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালি ইউনিয়নের গোয়ালবাড়ি গ্রামের মধু মিয়ার কন্যা মিনি বেগমের। ইসলামী শরাশরিয়ত মোতাবেক গত বছর ফেব্রুয়ারী মাসে বিয়ে হয়।
বিয়ের এক পর থেকে তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য চলে আসছিল। এর এক পর্যায়ে গত রবিবার দিবাগত রাতে হরিনাবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের আইসি কামাল হোসেনের নেতৃত্বে আইসি কামাল উদ্দিনসহ একদল পুলিশের ফোর্স নিয়ে উল্লেখিত বাড়িতে যায়। পুলিশের উপস্থিতিতে মরাদাতেয়া গ্রামের আপেল মিয়ার বাড়িতে তার স্ত্রী মিনি বেগম, দুই শ্যালিকা মিলি, মনজিলা, দুই শ্যালক জাফর ও লালু, শশুড় মধু মিয়া ও ভাড়াটে সন্ত্রাসী কুমেতপুর গ্রামের সাদা মিয়া বিভিন্ন অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে উপস্থিত হয়ে নগদ ১ লক্ষ ৬ হাজার ৫শ টাকা, ১টি টেলিভিশন, ১টি কাট, ১টি শো-কেস, চেয়ার টেবিল, কাপড় চোপরসহ কমপক্ষে আড়াই লক্ষাধিক টাকা মুল্যমানের মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
এসময় বাড়ির লোকজন বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা উল্লেখিত অস্ত্রাদী প্রদর্শন করে এবং হরিনাবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত লোকজনদের পুলিশী কায়দায় বলেন, আপেলের স্ত্রী মিনি বেগম হরিনাবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে অভিযোগ দাখিল করেছে। তাই তারা আপেলের বাড়ি থেকে নিয়ে যাচ্ছে।কেউ বাধা দিবেন না।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ইউনিটের সাবেক মেম্বর ও প্রতিবেশী আব্দুল কাদের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।
এ ব্যাপারে হরিনাবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে মোবাইলে যোগাযোগ করার জন্য চেষ্টা করা হলে তাদের মোবাইল বন্ধ থাকায় তাদের মতামত জানা সম্ভব হয়নি।

Comments

comments

Close