শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আইন ও বিচার, ঢাকা বিভাগ গাজীপুরের শ্রীপুরে বিধবা নারীর ছয় মাসের গাভীন গাই চুরি করে বিক্রি করায়, শ্রীপুর থানায় অভিযোগ।

গাজীপুরের শ্রীপুরে বিধবা নারীর ছয় মাসের গাভীন গাই চুরি করে বিক্রি করায়, শ্রীপুর থানায় অভিযোগ।


পোস্ট করেছেন: ক্রাইম রিপোর্টার, মোঃ রমজান আলী রুবেল | প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৬, ২০১৯ , ২:৩৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: আইন ও বিচার,ঢাকা বিভাগ


ক্রাইম রিপোর্টার রমজান আলী রুবেলঃ

গরু চোরের বেপরোয়া অত্যাচারে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। পুলিশের তৎপরতা থাকার পরও গরু চুরি বন্ধ হচ্ছে না। ফলে গ্রামের হতদরিদ্র মানুষ গুলো মূল্যবান গরু হারিয়ে বিপাকে পড়েছে। মাঝেমধ্যে গরু চোর হাতেনাতে ধরা পড়লেও এলাকার কিছু প্রভাবশালী মহল তা ধামাচাপা দিয়ে ফেলে ফলে কোনভাবেই গরু চুরি ঠেকানো যাচ্ছে না। গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের আবদার গ্রামের মোছঃ মনোয়ারা খাতুন এর ৮০ হাজার টাকা মূল্যের গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে ।

অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, ২৬ সেপ্টেম্বর রাতের কোনো একসময় মনোয়ারার নিজ গোয়াল ঘর থেকে একটি হালকা লাল ও সাদা রংয়ের ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা বকনা গরু চুরি হয়। পরের দিন সকালবেলা আশেপাশে গরু খুজাখুজির পর দুইদিন এলাকায় মাইকিং করে। পরে ১ নভেম্বর লোকমুখে শুনতে পায় জৈনা বাজার এলাকায় শহীদ নামের এক লোক গরু জবাই করে বিক্রি করে এবং ওই গরুর পেটে বাচ্চা ছিল।

শহীদ (৩৫) উপজেলার নগর গ্রামের হাবিল উদ্দিন ছেলে। গরু জবাই এর ঘটনা শুনিয়া গরু কোথায় থেকে কিনেছে তা শহীদের কাছ থেকে জানতে চাইলে সে জানায় স্থানীয় মোফাজ্জল সরকারের পিতা ফালু সরকারের কাছ থেকে ক্রয় করিয়াছে। কিন্তু এলাকার খোঁজখবর নিয়ে সকল তথ্য বিবরণীতে মনোয়ারা খাতুন শনাক্ত করেছেন এটা তারই গরু ছিল।পরে মনোয়ারা খাতুন বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় শহীদের বিরুদ্ধে একটি গরু চুরির লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

গরু বিক্রি ব্যাপারে ফালু সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি তিনটি গরু বিক্রি করেছি একটি ষাঁড় গরু ও দুইটি বকনা গরু, কিন্তু আমার কোনো গরু অন্তঃসত্তা ছিলো না। আমার জবাইকৃত গরুর সাথে কে বা কাহারা বাচ্চুর রেখে গিয়েছে তা আমি জানিনা।

এ ব্যাপারে শহীদের মুঠোফোন ০১৭২৮০৭০০১০ নাম্বারে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, এ ব্যাপারে এলাকার কিছু সাংবাদিকের নাম উল্লেখ করে বলেন এই ঘটনার সবকিছু তারা জানেন আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করুন। এবং যেই গরু কি আমি জবাই করেছি সেটা দিনের বেলায় করেছি সেটাতে কোন বাচ্চা ছিল না।

শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি লিয়াকত আলী জানান, আমরা গরু চুরির লিখিত অভিযোগ পেয়েছি ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments

comments

Close