শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রংপুর বিভাগ গাইবান্ধায় সাংবাদিকের ক্যামেরা ভাংচুরের ঘটনায় মামলা নেয়নি থানা

গাইবান্ধায় সাংবাদিকের ক্যামেরা ভাংচুরের ঘটনায় মামলা নেয়নি থানা


পোস্ট করেছেন: রংপুর বিভাগীয় ব্যুরো চিফ , | প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ২১, ২০১৯ , ৪:১৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: রংপুর বিভাগ


ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি: বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল কে টিভি বাংলার জেলা প্রতিনিধি মোঃ সুমন মন্ডলের ক্যামেরা ভাংচুরসহ রুমে অবরুদ্ধ করে হরতার হুমকি দিয়েছেন গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার হালিম নগর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মাহফুজার রহমান। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে ,পলাশবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুদুর রহমান মামলা না নিয়ে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে একটি জিডি করার পরামর্শ দেন ।

উল্লেখ্য একটি অভিযোগের ভিত্তিতে গত ১৮ নভেম্বর কে টিভি বাংলার জেলা প্রতিনিধি মোঃ সুমন মন্ডল ও দৈনিক যুগের বার্তা ও পাওয়ার নিউজ টুয়েন্টিফোর এর জেলা প্রতিনিধি মোঃ তাসলিমুল হাসান সিয়াম হালিম নগর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য ও তথ্য নিতে তার অফিসে গেলে কক্ষের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সামনে ধূমপানরত অবস্থার ছবি তুলতে চেষ্টা করলে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করাসহ ক্যামেরা বন্ধ করতে বলে । এরপর তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ , অবৈধ নিয়োগের কারনে ২০০৪ সালে একটি তদন্ত প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে অবৈধ নিয়োগের অভিযোগে ১/১২/১৯৯৫ যোগদানের তারিখ থেকে ৩১/১০/২০০৪ খ্রিষ্টাব্দ পরযন্ত উত্তোলিত ৩,২৫,৩৩৩টাকা সরকারি কোষাগারে ফেড়ৎসহ এমপিওভুক্ত তালিকা থেকে তার নাম কর্তনের জন্য তৎকালীন তদন্ত কর্মকর্তা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় । কিন্তু ঐ প্রধান শিক্ষক কি কারণে ঐ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিলেন না এবং না দিয়ে কিভাবে সহকারী শিক্ষক থেকে পদোন্নতি পেয়ে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন তার কারণ জানতে চাইলে তিনি আরো ক্ষিপ্ত হয় এবং তথ্য দিতে অস্বীকার করেন । পরে প্রধান শিক্ষকের কক্ষ থেকে বেরিয়ে দেখা যায় সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নবম শ্রেণীর ক্লাসে ঢুকিয়ে দিতে ব্যাস্ত অন্যান্য শিক্ষকরা । এসময় তালাবদ্ধ শ্রেনীকক্ষের ভিডিও ধারণ করতে গেলে প্রধান শিক্ষক তার কক্ষ থেকে দৌড়ে বেরিয়ে এসে ঐ সাংবাদিকদের অশ্লীল ভাষায় গালি দিয়ে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ ত্যাগ করতে বলেন এবং সাংবাদিকের হাতে থাকা ক্যামেরা ভাংচুর করেন এরপর মোবাইল দিয়ে ভিডিও করলে হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নিয়ে তার রুমে নিয়ে অবরুদ্ধ করার চেষ্টা করে এবং হত্যার হুমকি দেয় ।

Comments

comments

Close