বৃহস্পতিবার, ৬ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রংপুর বিভাগ সূর্যের দেখা নেই শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি গাইবান্ধায় জনজীবন কাহিল

সূর্যের দেখা নেই শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি গাইবান্ধায় জনজীবন কাহিল


পোস্ট করেছেন: রংপুর বিভাগীয় ব্যুরো চিফ , | প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ৬, ২০২০ , ৯:৩৩ অপরাহ্ণ | বিভাগ: রংপুর বিভাগ


ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি : সূর্যের দেখা নেই শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় গাইবান্ধায় জনজীবন কাহিল হয়ে পড়েছে। তৃতীয় দফায় আবারও হিমেল হাওয়াসহ ঘন ঘন কুয়াশা পড়া অব্যাহত থাকায় গাইবান্ধা জেলার জনজীবন ব্যাপকভাবে কাহিল হয়ে পড়েছে।গতকাল রবিবার ও আজ সোমবার সারাদিন কোথাও সূর্যের মুখ দেখা মেলেনি। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ও ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন হয়ে থাকে গোটা গাইবান্ধা জেলা। এরসাথে মৃদু মৃদু ঠান্ডা বাতাস শরীরে হার কাপা শীত উঠে যায়। এখনো হিমেল হাওয়া বইতে বইছে। হঠাৎ করে শীত শুরু হওয়ায় এবং রাতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মত কুয়াশা পড়ায় এ জেলার মানুষরা চরম বিপাকে পড়েছে।

হঠাৎ শুরু হওয়া এই শীতে জেলার সুন্দরগঞ্জ, ফুলছড়ি, সাঘাটা ও সদর উপজেলার ছিন্নমুলসহ চরাঞ্চলের মানুষরা বেশী দুর্ভোগের কবলে পড়ে। শীতে সাধারণ মানুষ বিশেষ করে শিশু এবং বয়স্করা এতে কষ্ট পাচ্ছে বেশি। শহরের গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে এখন মানুষের উপচে পড়া ভীড়। এই সুযোগে গাউন মার্কেট ও গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে ব্যবসায়িরা কাপড়ের দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়িয়েছে। ফলে অর্থাভাবে দরিদ্র মানুষদের পক্ষে শীতের কাপড় সংগ্রহ করা খুব কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে ঘন কুয়াশার কারণে ব্রহ্মপুত্র-যমুনাসহ অন্য নদ-নদীতে নৌ চলাচল বিঘিœত হচ্ছে। ফলে মূল ভূমির সাথে চরাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যাহত হচ্ছে। রাতে ঘন কুয়াশার কারণে নৌ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে চরাঞ্চলের মানুষদের যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম বিপাকে পড়তে হচ্ছে। ঘন কুয়াশা অব্যাহত থাকায় সরিষা গাছের ফুল ঝড়ে পড়ছে ও আসন্ন ইরি-বোরো বীজতলা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া ঘন কুয়াশা অব্যাহত থাকায় আলু কোল্ড ইনজুরিতে আক্রান্ত হচ্ছে।

Comments

comments

Close