রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রচ্ছদ, ফিচার, মতামত করোনা মহামারীতে দলীয় দৃষ্টির মধ্যে সীমাবদ্ধ সরকার এবং সরকারি দল

করোনা মহামারীতে দলীয় দৃষ্টির মধ্যে সীমাবদ্ধ সরকার এবং সরকারি দল


পোস্ট করেছেন: বার্তা | প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ২৬, ২০২০ , ২:৩২ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: প্রচ্ছদ,ফিচার,মতামত


ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন ::
করোনা ভাইরাস মারণব্যাধি সারা পৃথিবীকে থমকে দিয়েছে। ঘোটা পৃথিবী আজ ঘরের ভিতর আবদ্ধ। প্রতিদিন প্রতি মুহূর্তে এ-ই মরণব্যাধিতে আক্রান্তের সংখ্যা এবং লাশের বহর দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতম।
ধনী গরীব সকল দেশ আজ এই মহামারীতে
সব কিছু ভূলে দেশ এবং মানুষকে বাঁচানোর জন্য সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে।
এই যুদ্ধের সৈনিক ডাক্তার, নার্স এবং হাসপাতালের সাথে জড়িত লোক জন।
পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী দেশ গুলো এ-ই দূর্যোগ মোকাবিলায় সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
কিন্তু লাশের মিছিল কমানো যাচ্ছে না।
আমরা অনেক সময় পাওয়ার পর ও আমাদের সরকার আগাম পূুস্তুতি ভালো ভাবে নিতে পারে
নাই। আমরা বিদেশ থেকে আসা আমাদের
রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার মাধ্যমে আক্রান্ত কারীদের চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারি নাই।
করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য আমাদের সৈনিকদের আমরা প্রয়োজনীয় সমরাস্ত্র জোগান দিতে পারি নাই।
আমাদের মন্ত্রীদের লাগামহীন কথা এবং সরকারের সমন্বয় হীনতা এই সংকট তীব্র হতে পারে। করোনা একটি জাতীয় দূর্যোগ।
এই মহামারী মোকাবিলায় সকল রাজনৈতিক দল,বুদ্ধিজীবি, সাংবাদিক এবং বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সমন্বয়ে জাতীয় ঐক্যমত সৃষ্টি করা একান্ত দরকার।
আমাদের যেখানে সাত কোটি নিম্ন আয়ের মানুষকে রক্ষা করা অন্য দিকে করোনা মহামারী মোকাবিলা করা।
আমাদের বিদেশে কর্মরত লক্ষ লক্ষ লোক বিভিন্ন দেশে লক ডাউনে আটক আছে।
এই রেমিট্যান্স যোদ্ধারা তাদের পরিবারের নিকট টাকা পয়সা পাঠাইতে পারে না।
সরকারকে বিএনপির পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।
বাম রাজনৈতিক দল গুলো সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিয়েছে। জাতীয় সংকট মোকাবেলায় বৈঠক করার জন্য। দীর্ঘদিন ধরে দেশের নির্বাচন গুলোতে জনগণের ভোটের প্রয়োজন না হওয়াতে সর্বস্তরে এমপি হতে মেম্বার সকল প্রতি নিধি আওয়ামীলীগের।
তাই পুরো বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় কাঠামো সরকারের একক নিয়ন্ত্রিত।
এই সংকট কালীন এাণ সামগ্রী বিতরণে সরকার নিয়ন্ত্রণে ভিন্ন মতের লোকদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। বিএনপি দীর্ঘ ১৪ বছর শাসন ব্যবস্থার বাহিরে তার পর ও এই দলের নেতা কর্মীরা তাদের সাধ্য মতো সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।হাজার হাজার মিথ্যা বানোয়াট মামলায় তীব্র অর্থ কষ্টে থাকার পর ও প্রতিদিন তারা তাদের নিজস্ব অর্থায়নে সাধারণ মানুষের পাশে উপহার সামগ্রী ঘরে ঘরে পৌছানোর ব্যবস্থা করে যাচ্ছে।
বিএনপি ছারা বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠন, দেশে বিদেশে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী,চাকুরীজীবি এমন কি একজন ভিক্ষুক
তার আয়ের দশ হাজার টাকা নিয়ে সে মানবতার সেবায় এগিয়ে এসেছে।
বাচ্চাদের খাবারের জন্য এক মহিলা তার মাথার চুল বিক্রি করতে আমরা দেখেছি।
আমি ডাক্তারদের ধন্যবাদ জানাই তারা অন লাইনে মানুষের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে আসিতেছে।
শাসক দল তাদের জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আস্থা রাখতে না পারায় আমলাদেরকে এাণ সামগ্রী বিতরণ কাজ তদারকির দায়িত্ব দিয়েছে।
আমি একজন সামান্য রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে মনে করি এই মহামারী মোকাবিলায় কালবিলম্ব না করে দেশ প্রেমিক সশস্ত্র বাহিনীকে লক ডাউন নিয়ন্ত্রণ এবং এাণ সামগ্রী বিতরণের দায়িত্ব দিলে এই সংকট মোকাবেলা করা সহজ হবে।
ইতি মধ্যে সেনাবাহিনী ও পুলিশ ভাইদের কিছু কর্মকাণ্ড তাদেরকে মানুষ অনেক দিন স্মরণ রাখবে।
রমজান মাসে নিম্ন আয়ের মানুষ, নিম্ন মধ্য আয়ের মানুষ, বিদেশে বাসায় আটক রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের পরিবার যাতে সামান্য খাবার খেয়ে চলতে পারে সে ব্যবস্থা করতে হবে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এখন ও সময় আছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও শ্রেণি পেশার লোক জন নিয়ে এই সংকট মোকাবেলা করুন।
আসুন আমরা সবাই বাসায় থাকবো।
এবং যে যার অবস্থান থেকে মানুষের পাশে দাঁড়াই। জয় হউক মানবতার।
আল্লাহ সহায়।
ইনশাআল্লাহ এ-ই যুদ্ধে আমাদের জয় হবে।
আমরা রোজা রাখবো এবং তারাবি সহ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ বাসায় আদায় করবো।
আল্লাহর নিকট দোয়া করবো।
করোনা মহামারী থেকে তুমি আমাদের রক্ষা কর। আমীন।

# লেখক : বিএনপি নেতা

Comments

comments

Close