শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয়, প্রচ্ছদ, শোক গাছা প্রেসক্লাব সভাপতি এসএম মুজিবুর রহমানের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত

গাছা প্রেসক্লাব সভাপতি এসএম মুজিবুর রহমানের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত


পোস্ট করেছেন: বার্তা বিভাগ ৪ | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ৯, ২০২০ , ১২:৪৮ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জাতীয়,প্রচ্ছদ,শোক


গাজীপুর প্রতিনিধি ঃ

কলমেশ্বর রোকেয়া স্মরণী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক ও গাছা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম মজিবুর রহমান সুমন এর স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় গাছা প্রেসক্লাব চত্বরে।গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের বোর্ডবাজারে প্রেসক্লাব চত্বরে এ আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

গাছা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ কামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সহসভাপতি আরিফ মৃধার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের সফল কাউন্সিলর ও আগামী গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন মন্ডল, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ খান, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি রুবেল আহমেদ বেগ, সাংগঠনিক সম্পাদক এমারত হোসেন বকুল সরকার, গাছা থানা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান লিটন, প্রচার সম্পাদক জুম্মন খান, সহ-সাধারন সম্পাদক আলমগীর কবির, আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ নজরুল ইসলাম, আব্দুল খালেক, সোহেল মিয়া, মোঃ জাকির হোসেন জিয়া, সানাউল্লাহ স্বপন, এ আর আবুল হাসেম, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। 

আরও বক্তব্য রাখেন মহানগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, গাজীপুর জেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সাইফুল ইসলাম মানিক, সাংবাদিক রবিন, রনি ও রাজু সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ নেতা হাজী শাহীন খান, ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী মোস্তফা কামাল খান ও আলহাজ্ব মোঃ শাহীন খান যুগ্ন আহবায়ক মৎসজীবীলীগ গাজীপুর মহানগর সহ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন ও বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য কলমেশ্বর রোকেয়া স্মরণী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও গাছা প্রেসক্লাবের সভাপতি গেল ২ জুন ২০২০ ইং ঢাকার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে ও আত্মীয়-স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।তিনি একাধারে একজন গণমাধ্যমকর্মী ও একজন মানুষ গড়ার কারিগর আদর্শবান শিক্ষক ছিলেন। তার মৃত্যুতে তার পরিশ্রমে তিলে তিলে গড়ে ওঠা রোকেয়া স্মরণী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, পরিচালনা পরিষদের সদস্যবৃন্দ ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকদের মাঝে শোকের  ছায়া নেমে আসে।তার এই হঠাৎ মৃত্যু প্রতিটা মানুষের কাছে অত্যন্ত কষ্টের।এলাকার প্রতিটি মানুষকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে দিয়েছে তার হঠাৎ মৃত্যু। অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না সদাহাস্যোজ্জ্বল, সদালাপী এই মানুষটি হঠাৎ করে তাদেরকে ছেড়ে চলে যাবেন।

এস এম মজিবুর রহমান সুমন দীর্ঘ ২৭ বছর যাবত রোকেয়া স্মরণী বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। দায়িত্ব পালনকালে তিনি তিলে তিলে এ বিদ্যাপীঠ ঘরে তোলেন। একটি ভাঙ্গা প্রতিষ্ঠান থেকে তার নেতৃত্বে এখন বিদ্যালয়টি একটি বহুতল ভবনে রূপ নিয়েছে। তিনি স্বয়নে স্বপনে রাত দিন শুধু এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কথা ভাবতেন। এবং আজীবন তিনি এ বিদ্যাপীঠ এর উন্নয়নে কাজ করে গিয়েছেন। তাঁর নেতৃত্বে গাজীপুরে এ বিদ্যালয়টি একটি আদর্শ বিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় শতভাগ পাস সহ পাবলিক পরীক্ষাগুলোতে কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল করে আসছে এই বিদ্যালয়টি তারই নেতৃত্বে। তার রয়েছে বর্ণাঢ্য শিক্ষ জীবন। শুরু থেকে সারাটি জীবন ন্যায়ের পক্ষে ছিলেন তিন। শিক্ষকতা জীবনে সেখানে কোনো কালি লাগতে দেননি তিনি। তাই তার সহকর্মী শিক্ষক ও পরিচালনা পরিষদের প্রতিটি সদস্যের কাছে তিনি ছিলেন একজন আদর্শ শিক্ষক। মজিবুর রহমান স্যার চলে গেছেন। কিন্তু তিনি আমাদের জন্য রেখে গেছেন তার জীবনের আদর্শ।

পাশাপাশি একজন গণমাধ্যম কর্মী হিসেবে ও তার ছিল ব্যাপক সুনাম। তিনি একাধিক পত্রিকায় কাজ করেছেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো দৈনিক সন্ধ্যাবাণী, দৈনিক একুশের বাণী, দৈনিক সরেজমিন বার্তা, জাতীয় সাপ্তাহিক অপরাধ তথ্যচিত্র সহ একাধিক গণমাধ্যমে তিনি কাজ করেছেন। গাজীপুর মহানগর গাছা প্রেসক্লাব টি তারই হাতে গড়া। এ ক্লাবের তিনি ছিলেন প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। সোমবার বাদ মাগরিব এস,এম মজিবুর রহমান সুমনের মৃত্যুতে গাছা প্রেস ক্লাব কর্তৃক আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তারা মুজিবুর রহমানের স্মৃতিচারণ মূলক বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন তারা বলেন, তিনি ছিলেন একাধারে একজন শিক্ষক, একজন আদর্শবান সাংবাদিক। তার মৃত্যুতে আমাদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল। এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমাদের হয়তো অনেকদিন লাগবে। 

অন্যান্য বক্তারা বলেন,মজিবর স্যার ছিলেন আমাদের আদর্শ। তিনি অসংখ্য ছাত্র ছাত্রীর মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিয়ে আমাদের সমাজকে আলোকিত করে গিয়েছেন। আজ তিনি আমাদের মাঝে নাই ভাবতে আমাদের অনেক কষ্ট হয়। তারপরও নিয়তির নিয়ম এটা আমাদের মেনে নিতেই হবে। আমরা তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করি এবং তার জন্য দোয়া করি মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যেন তাকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করেন।অপরদিকে তার যে পরিবার আছে তারা যেন এই সোখ সইতে পারে মহান আল্লাহপাক যেন তাদেরকে সেই ক্ষমতা দান করেন।

অনুষ্ঠান শেষে মরহুমের রুহের আত্মার মাগফিরাতের জন্য দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মুফতি মাওলানা আব্দুল হালিম খান।

Comments

comments

Close