শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রচ্ছদ, রংপুর বিভাগ ধুনটে যমুনা নদীর অবৈধভাবে বালু উত্তোলন: ভাঙ্গনের কবলে বন্যা নিয়তন বাদ

ধুনটে যমুনা নদীর অবৈধভাবে বালু উত্তোলন: ভাঙ্গনের কবলে বন্যা নিয়তন বাদ


পোস্ট করেছেন: বার্তা বিভাগ ৪ | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ১৩, ২০২০ , ৫:৪৩ অপরাহ্ণ | বিভাগ: প্রচ্ছদ,রংপুর বিভাগ


স্টাফ রিপোর্টার :

বগুড়ার ধুনট উপজেলার ৫নং ভান্ডার বাড়ি ইউনিয়নের আওলাখাতি গ্রামের যমুনা নদীর ড্রেজার মেশিন বসিয়ে গভীর তলদেশ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এতে তীরবর্তী পানি নিয়তন বাদ ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এবিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর পক্ষে সাবেক মোম্ভর মোঃ হজরত আলী নামে এক ব্যক্তি ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করতেচান।স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, ধুনট উপজেলার ৫নংভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নের শহরাবাড়ি ও আলাখাতি যমুনা নদীর পানি নিয়তন বাদের পাশে বাড়ি ছেলে মোঃ শাহ আলম ড্রেজার মেশিন বসিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছেন।

যমুনা নদী গভীর তলদেশে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বোরিং করে বালু উত্তোলনের কারনে নদীর তীরবর্তী কয়েক বিঘা চর জমিতে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে।শহরা বাড়িগ্রামের লিজনেয়া বালু ব্যবসায়িক জানান, আওলাখাতি গ্রামের মোঃ শাহ আলম ও ইসতানুর গত কয়েকদিন ধরে যমুনা নদীর ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে। শুষ্ক মৌসুমে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করায় ইতিমধ্যেই যমুনা নদীর দুই পাড়ে চরের কয়েক বিঘা কৃষি জমিতে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে।

এভাবে বালু উত্তোলন অব্যাহত থাকলে শতাধিক বিঘা কৃষি জমি ভাঙ্গনের কবলে পড়ার আশংকা রয়েছে। তাই এবিষয়ে বানাজান, শিমুলবাড়ী ও শহরাবাড়ি ও আওলাখাতি, এলাকাবাসীর পক্ষে ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু তারপরও বালু উত্তোলন বন্ধ হচ্ছে না।তবে বালু ব্যবসায়ী মোঃ শাহ আলম ও ইসতানুর বলেন,আমি বালু বিক্রি জন্য বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। তবে এতে চরের জমির কোন ক্ষতি হচ্ছে না বলে তিনি দাবি করেন আমি বালু তোলার বিষয়টি আমার মামা সাবেক মোম্মবার মোঃ হজরত আলী কাজ থেকে অনুমিতি নিয়েছি এবং অবৈধ বালু বিষয়ে।

ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা বাংলাদেশ খবর কে বলেন, যমুনা নদী ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলনের বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। সেখানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments

Close