রবিবার, ৭ মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অপরাধ, আইন ও বিচার, আজকের পত্রিকা, তৃতীয় পাতা, রাজশাহী বিভাগ আত্রাইয়ে সরকারি লিজভুক্ত গুড় নদী খননকৃত বালু অবৈধভাবে বিক্রয়ের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

আত্রাইয়ে সরকারি লিজভুক্ত গুড় নদী খননকৃত বালু অবৈধভাবে বিক্রয়ের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ১৭, ২০২০ , ৬:২৯ অপরাহ্ণ | বিভাগ: অপরাধ,আইন ও বিচার,আজকের পত্রিকা,তৃতীয় পাতা,রাজশাহী বিভাগ


নওগাঁ প্রতিনিধি ঃ

নওগাঁয় আত্রাই উপজেলায় সরকারি লিজভুক্ত গুড় নদীর নৌ-পরিবহন (বিআইডব্লিউটি) এ কর্তৃপক্ষ খননকৃত বালু তমা এন্টারপ্রাইজ এর তোফাজ্জল হোসেন তোফা’র অবৈধভাবে বিক্রয়ের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টার দিকে শহরের ঐতিহ্যবাহী প্যারিমোহন লাইব্রেরীতে সরকারি ভাবে লিজকৃত বৈধ ইজাদার নিরেন চন্দ্র মহন্ত এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আত্রাইয়ে গুড় নদীর বালু মহাল বাংলা ১৪২৭ সনের জন্য ২০ লাখ ২০ হাজার ৫৫১ টাকায় ইজারা মূল্যসহ সরকারি বিধি মোতাবেক আয়কর ও ভ্যাট বাবদ ৪ লাখ ৪ হাজার ১১১ টাকা পরিশোধ করা হয়। গত ১৩/৪/২০ ইং তারিখে ৭৬৪ নং স্মারক পত্রের পরিপ্রেক্ষিতে আত্রাই সহকারী কমিশনার ভূমিকে একটি আবেদন করা হয়। পরদিন উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার তাকে বালু মহালটি বুঝিয়ে দেয়।

কিন্তু বালু মহালটি বুঝিয়ে দেয়ার সময় বিআইডব্লিউটি থেকে নদী খনন করায় বালু স্তুপ আকারে থাকায় মধুগুড়নই মৌজার ২৮১, ২৮২ ও ২৮৩ দাগে বাঁধ অ্যাকুয়ারের দাগের উপরে বালুগুলো লাল পতাকা দ্বারা চিহ্নিত করে তাকে বুঝিয়ে দেয়া হয়। এছাড়া পাঁচুপুর মৌজাসহ নদীর উভয় পাশে বিআইডব্লিউটি নদী খনন করায় বালুর স্তুপ পড়ে রয়েছে।

তিনি বলেন, ওই বালুগুলো স্থানীয় তোফাজ্জল হোসেন তোফা ২০১৮ সালে নিচু জায়গা পুরন করার জন্য বিআইডব্লিউটি থেকে ৩০ লক্ষ ঘনফুট বালুর রয়েলেটি নেন। কিন্তু তিনি ৩০ লক্ষ ঘনফুট বালুর রয়েলেটি পরিবর্তে প্রায় ২ কোটি ঘনফুট বালু বিক্রি করেছেন এবং এখনো কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া পাশেই পাথইল ঝাঁড়া মৌজাতেও বালু মজুদ রয়েছে। যদি ১৪২৭ সালের বিআইডব্লিউটি খননকৃত বালুও তিনি মজুদ করে নিচ্ছেন। যদি বিআইডব্লিউটি থেকে খননকৃত বালু তোফাজ্জল হোসেন বিক্রি করতে থাকেন তাহলে সরকার থেকে নেয়া বালু মহালের বালু তিনি বিক্রি করতে পারবেন না।

বিষয়টি নিয়ে গত দেড় মাস আগে জেলা প্রশাসনের রাজস্ব শাখা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা ভূমি অফিসে আবেদন করা হয়। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। ফলে বালু মহাল থেকে তিনি প্রতি মাসে ৬ হাজার ৬৪২ টাকা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। এ পর্যন্ত তার প্রায় ৪ লাখ ১১ হাজার ৮০৪ টাকা ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তিনি খুব শিগগিরই কর্তৃপক্ষের কাছে নিরসনের দাবী জানিয়েছেন ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- রানীনগর থানা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক শাহাদত সায়েম, আত্রাই উপজেলার বিশা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, আত্রাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিম উদ্দিন প্রামাণিক।
এ বিষয়ে তমা এন্টারপ্রাইজের স্বত্ত্বাধিকারী তোফাজ্জল হোসেন তোফা বলেন, বিআইডব্লিউটি থেকে ৬০ লাখ ঘনফুট বালু রয়েলেটি নিয়েছি। যেহেতু নদী খনন প্রক্রিয়াটি চলমান। বিআইডব্লিউটি মাটি-বালুর সাথে সরকারি ইজারা বালু মহলের কোন সম্পর্ক নাই। নিজস্ব জমিতে বালুগুলো রেখে আমি বিক্রি করছি। একটি পক্ষ পানি ঘোলা করতে মিথ্যা বানোয়াট ভাবে সংবাদ পরিবেশন করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

নওগাঁ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) উত্তম কুমার বলেন, ওই বালু মহালের প্রকৃত অবস্থা জানতে স্থানীয় ইউএনওকে তদন্ত করতে বলা হয়েছে। সরকারি ভাবে ইজারা নেয়া মহালের ইজাদার যেন কোন ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সে বিষয়টি আমরা দেখবো। এছাড়া বিআইডব্লিউটি থেকে বালুগুলো তোফাজ্জল হোসেন তোফা কিভাবে পেয়েছেন সেটাও দেখা হবে। এরপর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Comments

comments

Close