শনিবার, ৬ মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আজকের পত্রিকা, দ্বিতীয় পাতা, প্রচ্ছদ, রংপুর বিভাগ, সাক্ষাৎকার ২১ শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলার স্বীকার গাইবান্ধার মাহালম, এখন পর্যন্ত সরকারি সুবিধা পায়নি ।

২১ শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলার স্বীকার গাইবান্ধার মাহালম, এখন পর্যন্ত সরকারি সুবিধা পায়নি ।


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২০, ২০২০ , ১১:৪৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: আজকের পত্রিকা,দ্বিতীয় পাতা,প্রচ্ছদ,রংপুর বিভাগ,সাক্ষাৎকার


গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ। 
আওয়ামীলীগকে চিরো বিদায় করার লক্ষে, জাতীর জনকের সু-যোগ্য কন্যা দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্য করে ২১ শে গ্রেনেড হামলা চালায় বিরোধি দল বিএনপি ।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রাণে বেঁচে গেলেও দলের প্রাণ প্রীয় নেতা আইভি রহমানকে হারাতে হয়েছে ।
সেই স্বরণীয় দিন ২১ শে গ্রেনেড হামলার সময়, আওয়ামীলীগের অনেক নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষকেও দিতে হয়েছে প্রাণ ।
গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের ভাটি কাপাসিয়া গ্রামের মৃত্যু মেকরাজ আলীর পুত্র মাহালম মিয়াও ঐ হামলার স্বীকার হয়েছেন ।
মাহালম জীবন জীবিকার তাগিতে, রাজধানীতে রিক্সা চালাতেন ।
সেই দিনের ঘটনায় মাহালম গুলিবিদ্ধ হন, আহত মাহালমকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতে ৪০ দিন চিকিৎসা নিয়ে, অসুস্থ অবস্থায় বাড়ি ফেরেন ।
মাহালম ২১ শে গ্রেনেড হামলার স্বীকার হওয়ার বিষয়টি, সুন্দরগঞ্জ আসনের সাবেক আওয়ামীলীগের উপজেলা সভাপতি ও সংসদ সদস্য মহুম মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন ।
মাহালমের বিষয়টি বিভিন্ন মিটিংয়ে বক্তৃতার সময় বলতেন, এক পর্যায়ে মরহুম মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন, মাহালমকে ৫০ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছিলেন ।
এমপি লিটন ইন্তেকালের পড়, উপজেলা আওয়ামীলীগ আজ পর্যন্ত মাহালম বা তার পরিবারের খোঁজ খবর রাখেনি ।
 ২০ জুন মাহালমের সঙ্গে বিবিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর গাইবান্ধা জেলা সংবাদকর্মী শেখ মোঃ সাইফুল ইসলামের কথা হলে, মাহালম কান্না জড়িত কন্ঠে, ২১ শে গ্রেনেড হামলার কথা তুলে ধরে বলেন, হঠাৎ গুলির আওয়াজ, তার পারে মাহালম আর কিছু বলতে পারেনা ।
মাহালমে বেহুশ থেকে হুঁশ হয়ে দেখেন, সে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন ।
তার হাতে গুলি এক দিক দিয়ে ঢুকে অন্যদিক দিয়ে বেরিয়ে যায়, রাবাট বুলেটের আঘাতে বুক ছিদ্রহয়ে যায় ।
এক পর্যায়ে মৃত্যুর দুয়ার প্রাণে বেঁচে গেলেও, কেউ খোঁজ খবর রাখেনি মাহালমের ।
অসহায় মাহালমের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে এমপি লিটন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট আর্থিক সহযোগিতার জন্য আবেদন করার প্রস্তুতি নিলেও তা বাস্তবায়ন হওয়ার আগেই ইন্তেকাল করেন এমপি লিটন ।
পরবর্তি মাহালমের বিষয়টি মরহুম গোলাম মোস্তফা আহমেদ এমপি, মাহালমকে আস্হাস দিয়েছিলেন,
তিনিও এক পর্যায়ে ইন্তেকাল করেন ।
এই দুই আওয়ামীলীগ নেতা ছাড়া আর কেউ মাহালমকে কোনো প্রকার সহযোগিতা করেনি বলে জানান তিনি ।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট অসহায় মাহালম জীবন জীবিকার্থে সহযোগিতার আবেদন জানিয়েছেন

Comments

comments

Close