রবিবার, ৭ মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আজকের পত্রিকা, জাতীয়, প্রচ্ছদ, রাজনীতি দেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

দেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২৩, ২০২০ , ৩:৩৬ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: আজকের পত্রিকা,জাতীয়,প্রচ্ছদ,রাজনীতি


মোঃ মিনহাজ আহমেদ ঃ

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী দলটি ২০২০ সালের ২৩ জুন প্রতিষ্ঠার ৭১ বছর পার করছে। দেশের কঠিন সময়ের মধ্যে এ বছর ঐতিহাসিক দলটি তার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছে। এমন কঠিন সময় শুধু বাংলাদেশেই নয়, বিশ্বে এর আগে কখনো আসেনি।

১৯৪৯ সালের এই দিনে ঢাকার ঐতিহ্যবাহী কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে আওয়ামী মুসলিম লীগ নামে এই দলের আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল। পরে আওয়ামী লীগ নাম নিয়ে দলটি আরও বিকশিত হয়। দেশের স্বাধীনতা এনে দেওয়া দলটির ইতিহাস তাই বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাসের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িয়ে আছে।

কালক্রমে আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান—দুটি নাম একে অপরের পরিপূরক হয়ে ওঠে। এবার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছে দেশ। আগামী বছর স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী। আওয়ামী লীগ উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্য সামনে রেখেছে। সে হিসাবে এবারের আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীও জাঁকজমকপূর্ণই হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সবকিছু পাল্টে দিয়েছে।

৭১ বছরে এই দলটি হাজারো প্রতিকূলতার মাঝেও যা অর্জন করেছে তা এই উপমহাদেশের অন্যকোনো রাজনৈতিক দল অর্জন করতে পারেনি। ভেঙেছেও একাধিকবার। নিষিদ্ধ হয়েছে অন্তত ছয়বার। ১৯৫৪, ১৯৫৬ বা ১৯৭০ নির্বাচনের প্রদেশ কিংবা কেন্দ্রে জয়লাভ করেও পাকিস্তানের সামরিক-বেসামরিক আমলাদের ষড়যন্ত্রের কারণে ক্ষমতায় যেতে পারেনি।

১৯৫২ সালে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে অনেকের সঙ্গে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা রাজপথে বুকের রক্ত দিয়েছেন। ১৯৭১ সালে এই দলটির নেতৃত্বে বাঙালি নিজের মাতৃভূমি স্বাধীন করার জন্য যুদ্ধে গিয়েছিল। এইদলই জাতিকে উপহার দিয়েছিল হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধুর অন্যতম বড় কীর্তি ১৯৬৬ সালে বাঙালির মুক্তির সনদ ছয় দফা ঘোষণা, যার ভিত্তিতে ১৯৭০-এর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

আওয়ামী লীগ যখনই নির্বাচনে বিজয় লাভ করেছে তখনই মানুষ কিছু পেয়েছে। ১৯৭০-এর নির্বাচনের পর বাঙালি একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছে। কিন্তু সেই স্বাধীন দেশে বঙ্গবন্ধু বেঁচে ছিলেন সাড়ে তিন বছর। ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পুরো পরিবারকে অত্যন্ত নৃশংসভাবে হত্যা করে। বেঁচে যান বিদেশে থাকা তাঁর দুই কন্যা আজকের ক্রান্তিকালের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ছোট বোন শেখ রেহানা। দীর্ঘ ২১ বছর পর বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনা নির্বাচনের মাধ্যমে দলটিকে আবার ক্ষমতায় ফিরিয়ে এনেছিলেন।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে আওয়ামী লীগের অর্জন আছে অজস্র।৭১তম জন্ম বার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সব প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলা করে বাংলাদেশকে আরো উন্নত শিখরে নিয়ে যাবেন। গড়ে তুলবেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা।

Comments

comments

Close