রবিবার, ৭ মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
কৃষি, জীবন ধারা, প্রচ্ছদ ধুনটে যমুনার পানি স্থিতিশীল, ভাঙছে আবাদি জমি

ধুনটে যমুনার পানি স্থিতিশীল, ভাঙছে আবাদি জমি


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২৫, ২০২০ , ২:১০ অপরাহ্ণ | বিভাগ: কৃষি,জীবন ধারা,প্রচ্ছদ


মোঃ নাজমুল হাসান নাজির :
ধুনটে যমুনার পানি স্থিতিশীল, ভাঙছে আবাদি জমি উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারি বর্ষণের কারণে টানা এক সপ্তাহ ধরে যমুনা নদীর পানি বগুড়ার ধুনট উপজেলার শহড়াবাড়ি ঘাট পয়েন্টে বাড়ার পর মঙ্গলবার সকাল থেকে স্থিতিশীল।
মঙ্গলবার দুপরের দিকে বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী আসাদুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেন বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে যমুনা নদীর পানি বেড়ে ১৬ দশমিক ০৫ সেন্টিমিটার সমতায় প্রবাহিত হয়। এরপর বিকেল ৪টার পর্যন্ত নদীর আর পানি বাড়েনি। বর্তমানে যমুনার পানি স্থিতিশীল। আশা করা যাচ্ছে পানি আর বৃদ্ধি পাবে না। দু-এক দিনের মধ্যে হ্রাস পেতে পারে।এদিকে পানি বৃদ্ধি পেয়ে ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নের বৈশাখী, রাধানগর, নিউসারিয়াকান্দি, শহড়াবাড়ি, পুকুরিয়া, কৈয়াগাড়ি, বরইতলী, বানিয়াজান ও শিমুলবাড়ি চরের আউশ ধান ও পাটক্ষেতে পানি প্রবেশ করছে। এ ছাড়া পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রবল স্রোতে নদীর পূর্বতীরে আবদি জমি ভেঙে বিলীন হচ্ছে।
গত এক সপ্তাহে কমপক্ষে ২০০ মিটার অংশ ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।উপজেলার বানিয়াজান গ্রামের শামীম তালুকদার বলেন, যমুনা নদীর পূর্বতীরে তিন একর জমিতে প্রায় ৫ বছর আগে বিভিন্ন জাতের কাঠ গাছ রোপণ করেছিলাম। গত তিন দিনের ভাঙনে কাঠ গাছের বাগানের অর্ধেক অংশ নদীতে চলে গেছে। এ ছাড়া আমার বাগানের পাশে অনেকের আবাদি জমিও বিলীন হয়েছে। ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সঞ্জয় কুমার মোহন্ত দৈনিক একুশের বাণী কে বলেন, মঙ্গলবার বিকেলের দিকে যমুনা নদীর পুরো এলাকা পরিদর্শন করে মানুষের দুঃখ-দুর্দশার খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে।
বন্যা হলে জরুরি ভাবে সাহায্য-সহযোগিতা নিয়ে এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। সার্বক্ষণিক নদী এলাকা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

Comments

comments

Close