শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অপরাধ, প্রচ্ছদ, সড়ক ও জনপদ ভান্ডারিয়া পৌরসভায় অবৈধভাবে হাইওয়ে অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ

ভান্ডারিয়া পৌরসভায় অবৈধভাবে হাইওয়ে অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১৩, ২০২০ , ২:৩১ অপরাহ্ণ | বিভাগ: অপরাধ,প্রচ্ছদ,সড়ক ও জনপদ


পিরোজপুর প্রতিনিধি ঃ

হাইকোর্ট এবং স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা ও নিয়মনীতি উপেক্ষা করে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া পৌর শহরের বিভিন্ন স্থানে লাখ লাখ টাকার টোল আদালয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ভান্ডারিয়া পৌরসভা থেকে ইজারা নিয়ে পোনা সেতু সংলগ্ন ওভারব্রীজ এবং ভান্ডারিয়া বটতলা,বাসস্ট্যান্ড, টিএন্ডটি অফিসের সামনে, ভুবনেস্বর ব্রীজের উত্তর পাড়, ভান্ডারিয়া হাই ওয়েসহ বিভিন্ন স্পটে এসব টোল উত্তোলন করা হচ্ছে। বাস ট্রাক ছাড়াও রেজিষ্ট্রেশন ও ফিটনেস বিহীন শত শত ট্রলার টেম্পো, নছিমন, করিমন, মোটর সাইকেল, ব্যাটারি চালিত রিক্সাসহ অবৈধ যানবাহন পৌরসভার টোল দিয়েই রাতারাতি বৈধ হয়ে যাচ্ছে। এসব গাড়ীর কাগজ পত্র দেখতে চাইলে পৌরসভার টোলের স্লীপ প্রদর্শণ করে তারা।

বসুন্ধারা পেপার মিলসের ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-২৭৪২) ড্রাইভার মো. বশির আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, বরিশাল-ভান্ডারিয়া-মঠাবাড়ীয়া আঞ্চলিক মহাসড়কে দিয়ে যাতায়াত করার সময় বটতলা দিয়ে প্রবেশ করে ভান্ডারিয়া পৌর সভার এরিয়ার মধ্যে প্রবেশ করলেই ৫০ টাকা থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত টোল প্রদান করতে হয়। ট্রাক মালিক (ঢাকা মেট্রো ট-২০৮৮৯৮) মিজান বেপারী জানান, রাতে ট্রাকে মালামাল নিয়ে ভা-ারিয়া বাজারে প্রবেশ করলে ২শ টাকা দিতে হয়। আবার পরের দিন সকালে খালি ট্রাক নিয়ে বের হলে আবারও ২শ টাকা দিতে হয়, আমরা সারাদেশে গাড়ি নিয়ে যাই কিন্তু কোথায় হাইওয়ে সড়কে টোল দেয়ার নজির নাই। এছাড়া অন্য পৌর শহরে প্রতিটি গাড়ী প্রতি মাত্র ৫০ টাকা টোল আদায় করা হয় অথচ ভা-ারিয়ায় প্রায় চারগুন অর্থ আদায় করা হয়।

বসুন্ধারাসহ একাধিক কোম্পানীর পরিবেশক মো. আবু তাহের অভিযোগ করে বলেন, কোম্পানীর গাড়ী ভান্ডারিয়া প্রবেশ করলে টোল উত্তোলনের নামে ঘন্টার ঘন্টা দাড় করিয়ে রাখা হয়। এছাড়া অন্যান্য পৌরসভার নির্ধারিত টোলের ২ থেকে ৩ গুন টাকা ভান্ডারিয়া দিতে হয় তাদের এর প্রতিবাদ করলে ইজারাদারদের হাতে নাজেহাল হতে হয়। এ ব্যাপারে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পৌর প্রশাসক মো. নাজমুল আলমের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

দেশের কোন পৌর সভায় এ ধরণের নজির দেখা না গেলেও ভান্ডারিযা পৌর সভার টোল আদায়কারীদের কর্মকান্ডে হতাশ সাধারণ মানুষ। অথচ স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের পৌর এ্যাক্ট শাখার স্মারক ২০১৫সনে ৩ ডিসেম্বর এসবয় টোল আদায় অবৈধ ঘোষণা করে টোল আদায় বন্ধ ঘোষনা করা হয়।

ভান্ডারিয়া পৌর প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাজমুল আলম বলেন, পৌরসভার মধ্যে পার্কিং করে পন্য অথবা যাত্রী উঠা নামা করালে ওই সকল গাড়ীর পৌরসভার টোল দিতে হবে। কিন্তুু ভান্ডারিয়া হাইওয়ে অথবা পৌরসভার সড়ক ব্যবহার করে অন্যত্র চলেগেলে টোল দিতে হবে।

Comments

comments

Close