সোমবার, ১ মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অপরাধ, আইন ও বিচার, ঢাকা বিভাগ, প্রচ্ছদ গাজীপুরে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার অভিযোগ হত্যার

গাজীপুরে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার অভিযোগ হত্যার


পোস্ট করেছেন: বার্তা | প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৬, ২০২০ , ১২:২৭ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: অপরাধ,আইন ও বিচার,ঢাকা বিভাগ,প্রচ্ছদ


গাজীপুর প্রতিনিধি ঃ

গাজীপুরে কাজল(২৫) নামে এক যুবকে মোবাইল চুরির অপবাদে হত্যার অভিযোগ উঠেছে মাদক ব্যবসায়ী স্থানীয় মিজানের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে ৬ অক্টোবর গাজীপুর সিটির ৩২নং ওয়ার্ডের মৈরাণ ইনার রাড়ি আব্দুল মান্নানের বাড়িতে। নিহত কাজল মিয়া (২৫) একই এলাকার আরজ আলী দফেদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া দুলাল মিয়ার ছোট ছেলে।

ঘটনার ১৪দিন পর গাজীপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৪ জনকে আসামী করে মামলা করেছেন নিহতের পিতা দুলাল মিয়া। নিহতের পিতা দুলাল মিয়া অভিযোগ থানায় মামলা করতে গেলে নেয়া হয়নি মামলা। যদিও ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন গাছা মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) আহসানুল হক (গাছা জোন), গাছা থানার পরিদর্শক (ওসি) ইসমাইল হোসেন, উপপরিদর্শক (এসআই) উৎপল কুমার সাহা, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) প্রদীপ দে।

ভিকটিমের বড়ভাই কাওছার মিয়া অভিযোগ করে বলেন, এসআই উৎপল কুমার সাহা গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজের ময়নাতদন্তের শেষে লাশ হস্তান্তর করতে আমার স্বাক্ষর নিয়ে তড়িঘড়ি করে লাশ দাফন করেছেন পূর্ব চান্দনা কবরাস্থানে। সুরুত হাল তৈরি করে নিজে বাদী হয়ে গাছা থানায় করেছেন সাধারণ ডাইরী (২৩৬)। সুরুত হালে কাজলের মরদেহে দেখতে পাননি কোন আঘাতের চিহ্ন।

এসআই উৎপল জানান, লাশের শরীরে আঘাতের দাগ পাইনি। আর বেশী কিছু জানতে চাইলে ওসি স্যারের সাথে কথা বলেন। স্যারেরা ঘটনা স্থলে গিয়েছেন। অন্যদিকে নিহতের পরিবারের অভিযোগ, তার ছেলে কে মোবাইল ফোন চুরির মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ৫অক্টোবর সোমবার মোবাইল ফোন চুরির অপবাদে স্থানীয় আলী আকবরের ছেলে মিজান কাজল কে হাত পা বেধে সারাদিন প্রহার করে। পরে নিহত কাজলের ভাড়া করা মানানের বাড়িতে নিজ ঘড়ে আটকে চালানো হয় নির্যাতন।

কোন এক সময় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে কাজল।হত্যার প্রকৃত ঘটনা ধামাচাপা দিতে সাজানো হয় আত্মহত্যার নাটক। উপরে সিলিং তাল কাঠের সাতিশের সাথে পা মাটিতে নাগানো অবস্থায় ঝুলানো তাকে। ৬ অক্টোবর সকালে বাড়িওয়ালা মান্নানের স্ত্রী দুলাল মিয়ার বাড়িতে এসে বলে তার ছেলে কাজল নিজ ঘরে ঝুলে আছে। পুলিশ কে খবর দিলে গাছা থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) উৎপল কুমার সাহা ঘটনা স্থলে আসেন লাশ উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে ময়নাতদন্তের করে পূর্ব চান্দনা কবরস্থানে মাটি দেওয়া হয়।

স্থানীয় মাতাব্বর হাজী তাহের জানান, কাজল কে মারধোর কথা শুনেছি। লাশ উদ্ধারের সময় পুলিশ কাছে যেতে দেয়নি। স্থানীয় ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম জানান, মোবাইল চুরির অপবাদে একটু টর্চারিং হয়েছে শুনেছি। ৫-৭ পৃষ্ঠা হাতের লেখা নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। আমি একটু পড়েছিলাম। তবে ওটা কার লেখা পরিক্ষা ছাড়া নিশ্চিত হওয়া যাবেনা।

স্থানীয় দোকানদার রাশেদ ও তার ছেলে ফয়সাল, বিজয় পুলিশের সামনে লাশ উদ্ধারের বিষয়ে জানান, আমরা উপরের তাল কাঠের সাতিশের সাথে ঝুলানো এবং মাটির সাথে হাটু গাড়া অবস্থায় দুই পা মাটিতে ঠেকানো কাজলের মরদেহ নামিয়েছি পুলিশের সামনে। শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান, ডাঃ শাফি মোহাইমেন জানান, কাগজে কলমে পরিবারের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। রিপোর্ট প্রকাশের আগে মন্তব্য করা যাবে না।

Comments

comments

Close