শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অপরাধ, আইন ও বিচার, ঢাকা বিভাগ, প্রচ্ছদ গাজীপুরে অপহরনের ২ দিন পর , গাছা থানা পুলিশের প্রচেষ্টায় শিশু উদ্ধার।

গাজীপুরে অপহরনের ২ দিন পর , গাছা থানা পুলিশের প্রচেষ্টায় শিশু উদ্ধার।


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ১৯, ২০২১ , ১১:১২ অপরাহ্ণ | বিভাগ: অপরাধ,আইন ও বিচার,ঢাকা বিভাগ,প্রচ্ছদ


মোঃ সোহেল মিয়া , নিজস্ব প্রতিবেদকঃ-
গত ১৫-৩-২০২১ ইং তারিখ বিকেলে গাজীপুর মহানগরের গাছা থানাধীন মালেকের বাড়ী , দীঘির পার হতে নাঈম ( ৮ ) কে , হাতির পিঠে চড়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে , একটি অপহরন কারি চক্র , তাকে তুলে নিয়ে যায় , এর পর নাঈমের বাবা মোঃ সুলাইমান ( ৪৫) , ছেলেকে বিভিন্ন জায়গায় খোজা খুজি করে , না পেলে , বিষয়টি গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা , ওসি মোঃ ইসমাইল হোসেন কে অবগত করেন , নিখোজের সংবাদের বিত্তিতে ,  ওসি মোঃ ইসমাইল হোসেন , তাতক্ষনাত গাছা থানার ওসি তদন্ত , নন্দলাল  ও গাছা থানার সেকেন্ড অফিসার , এস আই মোঃ মোশারফ কে , দ্বায়ীত্ব প্রধান করেন । এর প্রেক্ষিতে এস আই মোঃ মোশারফের নেতৃত্বে অনান্য ফোর্স সহ , গাজীপুর ও উত্তরার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় ।
রাতে নাঈমের বাবা , মোঃ সুলাইমান এর নিকট , একটি অজ্ঞাত নামা নাম্বার থেকে ফোন আসে , জানায় ছেলেকে ফিড়ে পেতে চাইলে ২০ হাজার টাকা মুক্তিপন দিতে হবে , অন্যথায় শিশুটি কে মেরে ফেলার হুমকি দেয় ।
পরদিন ১৬-৩-২১ ইং তারিখ , সকাল ৭ ঘটিকার সময় , অপহরন চক্র , টাকা নিয়ে উত্তরায় যেতে বলে , সুলাইমান , ততক্ষনাত পুলিশের সহায়তায় , এয়াপোর্ট যান , কিন্ত চক্রটি কোন অস্থায় ধরা দেয়নি , তক্ষন সুলাইমান ছেলেকে পাওয়ার আশায় ১০ হাজার টাকা  রকেট নাম্বারের মাধ্যমে অপহরন চক্রের কাছে পাঠায় , তাতেও কাজ হয়নি , বাকি আরো দশ হাজার টাকা দাবি করেন ,  ওই চক্র । ওইদিন সন্ধ্যায় আবার মোবাইল ফোনে চক্রটি সুলাইমান কে জানায় , ১০ হাজার টাকা নিয়ে , মহানগরের গাছা থানাধীন বড়বাড়ী মসজিদের পাশে যেতে বলেন , সে খানে গেলেও পাওয়া যায়নি চক্রটিকে , মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানায় রকেট নাম্বারে ১০ হাজার টাকা পাঠাতে , তখন সুলাইমান ৮ হাজার টাকা পাঠান ওই নাম্বারে ,  কিন্তু শিশুটিকে ফেরত দেয়নি ।
এ সময় পুলিশ অপহরন চক্রের মোবাইল নাম্বার ট্র্যাক করে যানতে পারে হারিক্যান এলাকার আস পাশে আছে ওই চক্রটি , তখন , গাছা থানার তদন্ত ওসি নন্দলাল ও এস আই মোশারফের নিতৃত্বে পুলিশের একটি টিম মালেকের বাড়ী ও হারিক্যান এলাকায় , অভিযান চালায় , চক্রটি এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে , শিশুটিকে মালেকের বাড়ী মেইন রোডে ছেড়ে দিয়ে , পালিয়ে যায় । পুলিশ ও নাঈমের বাবা নাঈম কে মালেকের বাড়ী রাস্তা থেকে উদ্ধার করেন ।
এ বিষয়ে নাঈমের বাবা মোঃ সুলাইমান বাদি হয়ে গাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন , মামলা নংঃ- ১৪ । নাঈমের গ্রামের বাড়ী কিশোরগঞ্জ জেলার করিম গঞ্জ উপজেলার চরনগাও এলাকার মোঃ সুলাইমান এর ছেলে , বর্তমানে গাজীপুর মহানগরের মালেকের বাড়ী দীঘিরপাড় এলাকার হানিফের বাড়ির ভাড়াটিয়া ।
এ বিষয়ে , গাছা থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই মোঃ মোশারফ হোসেন , বাংলা নিউজ টিভিকে জানান , উক্ত অপহরনের বিষয়ে গাছা থানায় , নাঈমের পিতা বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন , আমরা ইতি মধ্যে শিশুটিকে উদ্ধার করে তার বাবা মায়ের নিকট বুঝিয়ে দিয়েছি , এ ঘটনায় যে সকল আসামী জরিত আছে তাদের গ্রেফতার অভিযান চলছে ।

Comments

comments

Close