শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আজকের পত্রিকা, প্রচ্ছদ, সংগঠন সংবাদ আল্লামা শফীর ইন্তিকাল নিয়ে পিবিআইয়ের রিপোর্ট উদ্দেশ্য প্রণোদিত মিথ্যাচার’বললেন হেফাজত আমির

আল্লামা শফীর ইন্তিকাল নিয়ে পিবিআইয়ের রিপোর্ট উদ্দেশ্য প্রণোদিত মিথ্যাচার’বললেন হেফাজত আমির


পোস্ট করেছেন: বার্তা বিভাগ ৪ | প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১৪, ২০২১ , ১১:২১ অপরাহ্ণ | বিভাগ: আজকের পত্রিকা,প্রচ্ছদ,সংগঠন সংবাদ


চট্রগ্রাম প্রতিনিধি ঃ

মরহুম আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. এর মৃত্যু নিয়ে আদালতে পিবিআইয়ের পেশকৃত রিপোর্টকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা দাবী করে এর গ্রহণযোগ্য পুণ: তদন্তের দাবী জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির, হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদিস ও শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

মঙ্গলবার (১৩ ই এপ্রিল) প্রেরিত এক বিবৃতিতে হেফাজত আমির বলেন- আল্লামা আহমদ শফী (রাহ.)এর মৃত্যু নিয়ে পিবিআই’র ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার যে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বাস্তবতা বিবর্জিত। আমরা মনে করি, বনজ কুমার মজুমদারের নেতৃত্বে তদন্তের ফলাফল এমনই হওয়ার কথা। আমরা এই উদ্দেশ্যমূলক প্রতিবেদন প্রত্যাহারপূর্বক দেশবাসীর কাছে গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম না এরপরও নতুন করে আমাকেসহ আরো বারোজনকে হয়রানীমূলক অন্তর্ভুক্ত করে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে। এই মামলা ডাহামিথ্যে ও হয়রানীমূলক। এর কোন বাস্তবতা নেই। চট্টগ্রাম মেডিকেলের ছাড়পত্র ও ঢাকা আজগর আলী হসপাতালের ডেথ সার্টিফিকেটসহ নির্ভরযোগ্য তথ্যপ্রমাণের আলোকে দেশবিদেশের সকলের নিকট প্রমাণিত হয়েছে, আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহ.)এর মৃত্যু আল্লাহ তায়া’লার হুকুমে স্বাভাবিক ছিলো। তিনি অনেকদিন ধরে বার্ধক্যজনিত রোগে ভূগছিলেন। রোগ বেড়ে যাওয়ায় একাধিকবার তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সর্বশেষ আল্লাহ ইচ্ছায় তিনি মহান রবের ডাকে সাড়া দিয়ে ইন্তিকাল করেছেন।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, আল্লামা আহমদ শফী (রহ.)এর মৃত্যুর পর তাঁর জ্যৈষ্ঠপুত্র মাওলানা ইউসুফ ব্যাখ্যামূলক বিবৃতির মাধ্যমে বাস্তব সত্য মিডিয়ার সামনে তুলে ধরেছেন। তাঁর বাবার মৃত্যু স্বাভাবিক হয়েছিল বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। এরপরও আল্লামা আহমদ শফী (রহ.)এর মৃত্যুর প্রায় দুই মাস পর দেশের শীর্ষ ওলামায়ে কেরামের নামে মামলা দায়ের হওয়ায় বুঝা যায় এই মামলা কতটা হাস্যকর ও ভিত্তিহিন।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য – হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক আল্লামা আহমদ শফী গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকায় আজগর আলী হসপিটালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুর আগের দিন মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে তিনি মহাপরিচালকের পদ ছাড়েন।

পরে গত ১৭ ডিসেম্বর আহমদ শফীর শ্যালক মইন উদ্দিন চট্টগ্রামের আদালতে মামলা করেন। মামলায় ৩৬ জনকে আসামি করা হয়েছিল। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ৪৩ জনের মধ্যে ৩১ জন এজাহারভুক্ত। তারা হলেন- মাওলানা নাছির উদ্দিন মুনির, মাওলানা মীর ইদরিস, হাবিব উল্লাহ আজাদী, আহসান উল্লাহ, আজিজুল হক ইসলামাবাদী, জাকারিয়া নোমান ফয়েজী, আব্দুল মতিন, মো. শহীদুল্লাহ, রিজওয়ান আরমান, হাসানুজ্জামান, মো. এনামুল হাসান ফারুকী, মীর সাজেদ, জাফর আহমদ, মীর জিয়াউদ্দিন, মাওলানা আহম্মদ, মাওলানা মাহমুদ, আসাদুল্লাহ, জুবাইর মাহমুদ, হাফেজ জুনায়েদ আহমেদ, আনোয়ার শাহ, ছাদেক জামিল কামাল, কামরুল ইসলাম কাসেমি, মো. হাসান, ওবায়েদুল্লা ওবায়েদ, জুবাইর, মাওলানা মোহাম্মদ, আমিনুল হক, সোহেল চৌধুরী, মবিনুল হক, নাইমুল ইসলাম খান ও হাফেজ সায়েম উল্লাহ।

এদিকে পিবিআই’র তদন্তে নতুন করে যে ১২ জনের নাম যুক্ত হলো তারা হলেন- জুনায়েদ বাবুনগরী, মাওলানা শফিউল আলম, শিব্বির আহমেদ, আবু সাঈদ, হোসাইন আহমদ, তাওহীদ, এরফান, মামুন, আমিনুল, মাসুদুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম এবং নুর মোহাম্মদ।

Comments

comments

Close